গরমে ত্বকের যত্ন কিভাবে নিব
Health Care

গরমে ত্বকের যত্ন কিভাবে নিব

বাতাসে উষ্ণতা বাড়ার সাথে সাথে ত্বকে এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। সূর্যের তাপ এবং ধুলাবালুর কারণে এ সময়ে ত্বকের জন্য প্রয়োজন বাড়তি যত্নর। 

গরম কাল এসে গিয়েছে। আর আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত হয় তা হলে ইতিমধ্যে দুশ্চিন্তায় আপনার ত্বকে আরও বেশ কয়েকটি অ্যাকনে উঁকি মারা শুরু করে দিয়েছে। গ্রীষ্ম এমনিতেই ত্বকের উপর নানা কুপ্রভাব বিস্তার করে (Summer Skin Care)। ত্বক শুষ্ক, আর্দ্রতাহীন ও খসখসে হয়ে ওঠে। তার উপরে ক্রমাগত ঘামের জন্য তৈলাক্ত ত্বকের ক্ষেত্রে নানা রকম ত্বকের সমস্যা যেমন, পিম্পলস-অ্যাকনে বেড়ে যায়। তবে এ সবের হাত থেকে মুক্তি পেতে প্রচুর টাকা খরচা করতে হবে তা কিন্তু নয়। আপনার রান্নাঘরের কয়েকটি উপাদান এই সমস্যার হাত থেকে আপনাকে রেহাই দিতে পারে। তেমনি একটি গুরুত্বপূর্ণ ফল হলো কমলালেবু। সত্যি বলতে ত্বকের উপর জাদু করতে পারে কমলালেবু। কারণ এর মধ্যে অতিরিক্ত তেল শুষে নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে।ত্বকের উপর জাদু করতে পারে কমলালেবু। কারণ এর মধ্যে অতিরিক্ত তেল শুষে নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে।

  • কমলালেবু অতিরিক্ত তেল শুষে নিতে পারে
  • কমলালেবুর ত্বকের সমস্যায় মিরাকেল করতে পারে
  • অ্যাকনে, পিম্পলস-এর সমস্যায় কমলালেবুর ফেসপ্যাক উপকারী

কমলালেবু দিয়ে তৈরি তিনটি ফেস প্যাকের সন্ধান:

১. কমলালেবু ও নিমের ফেস প্যাক:

উপকরণ

৩ টেবিল চামচ কমলালেবুর রস, ২ টেবিল চামচ দুধ, ৩ টেবিল-চামচ নিমপাতা বাটা।

প্রনালী

একটি পাত্র নিয়ে তার মধ্যে নিমপাতা বাটা ও দুধ ভালো ভাবে মিশিয়ে নিন। এ বার তার মধ্যে কমলালেবুর রস মেশান। মিশ্রণটি ঘন থকথকে হলে মুখে মেখে কুড়ি মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

২. কমলালেবু ও বেসনের ফেসপ্যাক:

উপকরণ

২ টেবিল চামচ বেসন, ৩ টেবিল চামচ গোলাপজল, ৩ টেবিল চামচ কমলা লেবুর রস।

প্রনালী

কমলালেবুর রসের সঙ্গে বেসনের গুঁড়ো ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপরে তার মধ্যে পরিমাণমতো গোলাপ জল মেশান। মুখে মেখে কুড়ি মিনিট রাখার পরে দেখবেন পুরো মিশ্রণটি শুকিয়ে গিয়েছে। তখন হালকা হাতে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন বা নরম কাপড় ভিজিয়ে মুছে ফেলতে পারেন। এক সপ্তাহে ৩ বার এই প্যাক ব্যবহার করুন।

৩. কমলা লেবু এবং ওটমিল ফেসপ্যাক

উপকরণ

১ টেবিল চামচ ওটমিল, ২ টেবিল চামচ কমলালেবুর রস।

প্রণালী

একটি পাত্রে দুটি উপাদান ভালোভাবে মিশিয়ে মুখে মাখুন। দশ থেকে বারো মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন ।

নিন্মে আরো কিছু নিয়মাবলি দেওয়া হলো

গরমে ত্বকের যত্ন কিভাবে নিব

পানি পান করুনঃ পানি শুধু শরীরে আর্দ্রতা জোগায় না, ত্বককে করে তোলে সজীব। তাই ত্বক সুন্দর রাখতে এ সময়ে প্রচুর পানি পান করুন।

টোনার ব্যবহার করুনঃ টোনার ত্বকের রোমকূপ বন্ধ ও ত্বককে শীতল রাখতে সাহায্য করে। বাজার থেকে ভালো কোম্পানির টোনার দেখে কিনুন। ঘরোয়া টোনার হিসেবে গোলাপজল ভালো কাজ করে।

ওয়াটার বেজ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুনঃ গরমের সময়ও ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার বন্ধ করবেন না। কারণ ময়েশ্চারাইজার ত্বকে আর্দ্রতা জোগানোর পাশাপাশি ত্বককে নরম রাখে। তবে গরমের সময় ওয়াটার বেজ ময়েশ্চারাইজার বেছে নিন ত্বকের যত্নে।

ত্বক পরিষ্কার রাখুনঃ সকালে ও রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে অবশ্যই ত্বক পরিষ্কার করুন। যদি এমন হয় সারা দিন বাইরে বের হননি তবুও রুটিন করে ত্বক পরিষ্কার করতে ভুলবেন না।

ত্বককে আরো বেশি উজ্জ্বল করতে নিয়মিত এগুলো ব্যবহার করুন

বয়সের ছাপ সবার আগে আমাদের ত্বকেই পড়ে। মুখ থেকে শুরু করে স্তন, বাহু, পেট ইত্যাদি শরীরের সকল স্পর্শ কাতর অঙ্গে আগে দেখা যায় বয়সের ছাপ। ভাবছেন বয়স্কে রুখে দেয়ার কোন উপায় নেই? আছে বৈকি! বয়স হয়েছে বলেই চেহারায় ও শরীরে সেই ছাপ বহন করতে হবে এমন কোন কথা নেই। আপনি চাইলে ঘরে বসে খুব সহজ কিছু উপায়েই আপনার কুঁচকে ও ঝুলে যাওয়া ত্বককে করে ফেলতে পারেন অনেকটাই টান টান ও যৌবন দীপ্ত। কীভাবে? চলুন, জেনে নিই তিনটি জাদুকরী কৌশল।

অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা আমাদের অসংখ্য ত্বকের সমস্যার জন্য একটি চমৎকার উপাদান। অ্যালোভেরা প্রাকৃতিক ভাবেই আপনার কুঁচকে ও ঝুলে যাওয়া ত্বকের বলিরেখা দূর করে একে করে তোলে টান টান। আপনি মুখ থেকে শুরু করে স্তন, বাহু, পেট বা শরীরের যে কোন স্থানে ব্যবহার করতে পারবেন এই অ্যালোভেরা জেল। তাজা অ্যালোভেরা জেল মাখুন শরীরের সমস্যা আক্রান্ত এলাকায়। আলতো হাতে ম্যাসাজ করুন। আপনি চাইলে সম্পূর্ণ শরীরই এই জেল দিয়ে ম্যাসাজ করতে পারেন। ম্যাসাজ করা হলে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। বাজারের প্যাকেটজাত অ্যালোভেরা
জেল ব্যবহার করতে পারেন। তবে সদ্য গাছ থেকে সংগ্রহ করা জেল হলে ফল পাবেন খুবই দ্রুত। আর হ্যাঁ, রোজ ব্যবহার করবেন।

গোলাপ জল

অসাধারণ এই উপাদানটি আপনার সৌন্দর্যের বন্ধু। গোলাপ জল আপনার ত্বককে টানটান করে ও বলিরেখা ও রোমকূপকে অদৃশ্য রেখে আপনাকে করে তোলে লাবণ্যময়। রাতের বেলা শরীরের প্রয়োজনীয় স্থানে তুলো দিয়ে গোলাপ জল লাগান। চাইলে গোলাপ জল দিয়ে স্থানটি ধুয়েও নিতে পারেন। তারপর স্থানবতি শুকিয়ে গেলে এভাবেই রাখুন সারা রাত। সকালে সাধারণ পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। তবে এক্ষেত্রে ১০০ ভাগ বিশুদ্ধ গোলাপ জল হতে হবে। চিন্তা নেই, সাধারণ এই জিনিসটি আপনি তৈরি করতে পারবেন বাড়িতেই!

ডিমের সাদা অংশ

দুটি ডিমের সাদা অংশ নিন, একে ভালো করে বিট করে ফোম করে নিন। তারপর মুখ সহ অন্যান্য স্থানে মাখুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩/৪ বার নিয়মিত ব্যবহারে ত্বক হয়ে উঠবে টান টান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *